অবশেষে দুই বছর পর সুশান্ত সিং রাজপুতকে নিয়ে নয়া রহস্য প্রকাশ করলেন প্রত্যক্ষদর্শী

২০২০ সালের ১৪ জুন কেঁপে উঠেছিল গোটা বলিউড যখন বান্দ্রা থেকে উদ্ধার হয় অভিনেতা এর মৃতদেহ। প্রাথমিক তদন্তের পর ওই মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলা হয়। তবে আদৌ সেটা খুন না আত্মহত্যা? দুই বছর ধরে ও সেই তদন্তের সমাধান হয়নি।

অবশেষে দুই বছর পর তদন্তে এলো গতি। মুখ খুললেন পোস্টমর্টেম করা এক প্রত্যক্ষদর্শী। মর্গের এক কর্মী এমন বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন যে তার বয়ান পাল্টে দিতে পারে গোটা তদন্তের মোড়। তিনি ছিলেন অটোপসি অ্যাসিস্ট্যান্ট।

তদন্তে অভিনেতার মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলা হলেও বারবার তার পরিবার এবং আপনজনেরা দাবি করে এসেছেন যে এটা সাজানো হত্যা। হয়তো সেটাই সত্যি কারণ পোস্টমর্টেম করা সেই প্রত্যক্ষদর্শী নিজের চোখে এমন কিছু দেখেছেন যেটা তদন্তে প্রকাশ পায়নি। এক সংবাদ মাধ্যমে তিনি চমকপ্রদ দাবি করেছেন।

রূপকুমার শাহ জানিয়েছেন যে সেই দিন পোস্ট মডেম করার জন্য হাসপাতালে পাঁচটি মৃতদেহ আসে যার মধ্যে একটি ভিআইপি দেহ ছিল বলে তাদের জানানো হয়। তারা যখন দেহ ময়না তদন্ত করেন সেই সময়ে তিনি সুশান্তের দেহে বেশ কিছু ক্ষত দেখতে পান।

তার গলায় দুই থেকে তিনটি আঘাতের চিহ্ন ছিল। এরপর তিনি দাবি করেন পোস্টমটেম রেকর্ড করা দরকার ছিল কিন্তু উদ্বোধন কর্তৃপক্ষকে শুধুমাত্র দেহের ছবি ক্লিক করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। তাই তারা নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করেছেন।

তুই করবি এটাও বলেছেন যে তিনি যখন প্রথমবার অভিনেতার দেহ দেখেছিলেন তখন তিনি সিনিয়রকে জানিয়েছিলেন এটা আত্মহত্যা নয়। এমনকি এটাও বলেছিলেন যে নিয়ম অনুযায়ী কাজ করা উচিত। কিন্তু তার সিনিয়ররা তাকে শুধুমাত্র দেবের ছবি ক্লিক করতে বলে এবং যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দেহটি পুলিশকে ছেড়ে দিতে বলে।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.