একদম ছোট সাদা অন্তর্বাসে ভাইরাল বাঙালি কন্যা মৌনি রয়

হিন্দি টেলিভিশন ধারাবাহিক দিয়ে কেরিয়ার শুরু করে এখন বলিউডে (bollywood) অন‍্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী মৌনি রায় (mouni roy)।

মাত্র কয়েক বছর ইন্ডাস্ট্রিতে থেকেই হাল হকিকত বুঝে গিয়েছেন এই বাঙালি কন‍্যে। সোশ‍্যাল মিডিয়াতেও অব‍্যাহত রয়েছে মৌনির জলবা।

সম্প্রতি নিজের ইনস্টাগ্রাম হ‍্যান্ডেলে কয়েকটি ছবি (photo) শেয়ার করেছেন মৌনি। সাদা বিকিনিতে সুইমিং পুলের জলে ভেসে বেড়াতে দেখা গিয়েছে তাঁকে।

ভেজা শরীরে আবেদনময়ী ভঙ্গিতে ক‍্যামেরাবন্দি হয়েছেন মৌনি। প্রতিটি ছবিই ভাইরাল (viral) হয়েছে সোশ‍্যাল মিডিয়ায়।

সম্প্রতি নিজের ইনস্টাগ্রাম হ‍্যান্ডেলে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন মৌনি। ভিডিওতে তাঁকে একটি সাদা সিংহীকে খাবার খাওয়াতে দেখা যাচ্ছে।

হাতে বড়সড় একটি মাংসের টুকরো নিয়ে সিংহীকে খাওয়াচ্ছেন মৌনি। ভিডিওটি শেয়ার করতেই তুমুল ভাইরাল নেটদুনিয়ায়।

ক‍্যাপশনে মৌনি জানিয়েছেন, এই সিংহীর নাম কিউপি। মাত্র ১০ মাস বয়স তাঁর। তিনি আরো জানিয়েছেন, সিংহীকে খাবার খাওয়ানোর সময় বেশ ভয় পেয়ে ছিলেন তিনি।

কিন্তু তার থেকেও বেশি কিউপির সঙ্গে দেখা করতে পেরে বেশি খুশি তিনি। তবে কমেন্ট বক্সে অনেকেই মৌনিকে সাবধান হতেও বলেছেন।

প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগেই সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছিলেন মৌনি। হঠাৎ করেই ন‍্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জের টুইটার হ‍্যান্ডেলে টুইট করা হয় মৌনির কিছু ‘হট’ ছবি। সঙ্গে ক‍্যাপশন দেওয়া হয়, ‘শনিবারের উত্তাপ বাড়ালেন, মৌনি রায়ের ব্রেথটেকিং লুক’।

তবে কিছুক্ষণের মধ‍্যেই অবশ‍্য মুছে ফেলা হয় সেই টুইট। কিন্তু ততক্ষণে যা হওয়ার হয়ে গিয়েছে। ন‍্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জের সেই টুইটের স্ক্রিনশট মুহূর্তে ভাইরাল হয়ে যায় নেটদুনিয়ায়।

শুরু হয় তুমুল ট্রোল। কেউ কেউ লেখেন, সম্ভবত বেশিই মদ‍্যপান হয়ে গিয়েছিল। যার ফল মৌনির এই ছবি টুইট।

তবে নিজেদের দোষ স্বীকার করে ক্ষমাও প্রার্থনা করা হয় ন‍্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জের তরফে। একটি টুইট করে লেখা হয়, ‘বেলা ১২:২৫ নাগাদ NSE হ‍্যান্ডেলে একটি অনিচ্ছাকৃত পোস্ট করা হয়েছিল।

যে সংস্থা NSE হ‍্যান্ডেল চালনা করছিল তাদেরই কোনো কর্মীর ভুল এটা। কোনো রকম হ‍্যাকিং হয়নি। আমাদের ফলোয়ারদের অসুবিধার জন‍্য আমরা আন্তরিক ভাবে ক্ষমাপ্রার্থী।’

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.