ভারত বড় সুখবর দিলো পাকিস্তানকে

এ বছর অক্টোবর-নভেম্বরে ভারতে বসছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের আসর। তবে এই বিশ্ব আসরে এখনও নিশ্চিত নয় পাকিস্তানের অংশগ্রহণ।

রাজনৈতিক কারণেই দেশটির নাগরিকদের ভারতে ভ্রমণের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে ভারতীয় সরকার।

তাই অংশগ্রহণের নিশ্চয়তা চেয়ে ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) কাছে নিজেদের উদ্বিগ্নতার কথা উল্লেখ করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

মূলত বৈশ্বিক এই আসরে অংশগ্রহণের জন্য পাকিস্তানের ক্রিকেটার, সাংবাদিক, সমর্থকরা ভিসা পাবে কিনা সে ব্যাপারে নিশ্চয়তা চেয়েছিল দেশটি।

মার্চের মধ্যে এই নিশ্চয়তা না পেলে বিশ্বকাপ সরিয়ে অন্য কোথাও আয়োজনের দাবিও তোলে পিসিবি। তবে বিশ্বকাপে পাকিস্তানের অংশগ্রহণে কোন জটিলতা নেই উল্লেখ করে ইতিমধ্যে আইসিসিকে নিশ্চিত করেছে বোর্ড অফ কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই)।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘ক্রিকবাজ’ এর বরাতে এমন তথ্যই জানানো হয়েছে। বিশ্ব ক্রিকেট নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে এই ব্যাপারে চিঠি দিয়ে নিশ্চিত করেছে বিসিসিআই।

লিখিত সেই চিঠিতে জানানো হয়েছে যে, পাকিস্তানিদের জন্য অক্টোবর-নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ নিয়ে কোন ধরনের জটিলতা হবে না।

সেখানে ইন্টারন্যাশনাল অলিম্পিক কমিটির কাছে এ ব্যাপারে দেয়া ভারত সরকারের এক চিঠি উদ্ধৃত করে উল্লেখ করা হয়েছে, বৈশ্বিক আসরে অংশগ্রহণের জন্য কোন দেশকে ভারতে প্রবেশে বাঁধা দেয়া হবে না।

এর আগে পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি জানিয়েছেন, ভারতের কাছ থেকে ভিসা নিশ্চয়তা চাওয়াটা তাদের অধিকার এবং কারও ক্ষমতা নেই যে পাকিস্তানকে বিশ্বকাপ থেকে দূরে রাখবে।

পাকিস্তান অংশ নিতে না পারলে বিশ্বকাপ সরিয়ে দেয়া হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘হয় আমরা পূর্ণ প্রটোকল সহকারে যাব টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে, না হয় বিশ্বকাপই ভারত থেকে সরে যেতে বাধ্য হবে।’

২০১২ সালে সর্বশেষ ভারতে দ্বিপক্ষীয় টুর্নামেন্ট খেলে পাকিস্তান। অবশ্য এরপর ২০১৬ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাকিস্তানকে অংশগ্রহণের অনুমতি দেয় দেশটির সরকার।

২০২০ সালের এশিয়া কাপ পাকিস্তানে হওয়ার কথা থাকলেও ২০২১ সালের জুনে সেটিকেও ভারতের অনুরোধে পাকিস্তান থেকে সরিয়ে শ্রীলঙ্কায় আয়োজন করছে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি)।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.