রিয়ার টি-শার্টে বুকের ওপর যা লেখা তা আদতে পিতৃতন্ত্রর প্রতিবাদ নয়, স্যানিটারি প্যাডের প্রচার!

রিয়া চক্রবর্তীই এখন খবরের শিরোনামে৷ সুশান্ত মৃ’ত্যু তদন্তে গতকাল, মঙ্গলবার, তাঁকে গ্রেফতার করে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো ৷ মঙ্গলবার রাতে এনসিবি কোয়াটারে ছিলেন রিয়া ৷ আজ, বুধবার, থেকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতে অভিনেত্রী ৷ এরই মধ্যে রিয়ার টি-শার্ট নিয়ে শুরু হয়েছে চর্চা৷ যেই টি-শার্টটি পরে তিনি এনসিবি দফতরে এসেছিলেন তাতে একটি লাইন লেখা ছিল যা সকলের নজরে পড়েছে৷ এবং অনেকেই সেই লেখার প্রসংশাও করেছেন৷

তাতে লেখা ছিল “Roses are red, violets are blue, let’s smash the patriarchy, me and you.” অনেকেই মনে করছেন যে এটা আদতে পিতৃতন্ত্রকে গুড়িয়ে দেওয়ার কথা বলছে৷ মানে যেভাবে সুশান্তের মৃ’ত্যুর ঘটনায় একজন মহিলাকে তদন্তের আগে কাঠগোড়ায় তোলা হচ্ছে এবং লাগাতার বদনাম করা হচ্ছে, তারই প্রতিবাদে এই লেখা৷ তবে আদতে এটার পিছনে রয়েছে অন্য মানে৷ এটি একটি স্যানিটারি প্যাডের প্রচারের লেখা৷ রোজের আর রেড একটি বিখ্যাত কাপড় সংস্থার ক্যাম্পেন৷ ঋ’তুস্’রাবের বিষয় সচেতনতা বাড়াতে এবং গ্রামীণ মহিলাদের জন্য এই নিয়ে টাকা সংগ্রহ করতে এই প্রচার৷

আপাতত এনসিবি হেড কোয়ার্টার থেকে বাইকুলা জেলে নিয়ে আসা হয়েছে রিয়া চক্রবর্তীকে। বেল না হওয়া পর্যন্ত এখানেই থাকতে হবে তাঁকে। মঙ্গলবার রাতে তাঁর বেলের আবেদন খারিজ করে আদালত। আজ, বুধবার, ফের নতুন করে জামিনের আবেদন করবেন রিয়ার আইনজীবী।

তিন দিন টানা জেরার পর গতকাল গ্রেফতার করা হয়েছে বলিউড অভিনেত্রী ও সুশান্ত সিং রাজপুতের ‘প্রেমিকা’ রিয়া চক্রবর্তীকে ! গ্রেফ’তারের পরে এবার রিয়ার মেডিক্যাল টেস্ট করা হয় ৷ জানা গিয়েছে, অন্য তিন গ্রেফতার অভিযুক্তদের সঙ্গে রিয়াকে আদালতে নিয়ে যাওয়া হবে ৷ খবর রয়েছে, রিয়ার বিরুদ্ধে প্রচুর তথ্য প্রমাণ পেয়েছে এনসিবি ৷ তবে রিয়ার করোনা টেস্ট নেগেটিভ এসেছে।

অন্যদিকে, জেরার মুখে রিয়ার ভাই ও সুশান্তের পরিচারক দীপেশ আগেই জানিয়ে ছিলেন, রিয়ার সঙ্গে মাদকচক্রের সংযোগ থাকার কথা ৷ এই সবের ওপর নির্ভর করেই নানা অভিযোগে রিয়াকে গ্রেফতার করা হয় ৷ সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ’ত্যু রহস্যের তদন্ত শুরু করেছে সিবিআই। তদন্ত শুরু হওয়ার পর থেকেই একের পর এক তথ্য সামনে উঠে আসতে শুরু করে।

বলিউডের মাদকচক্র নিয়েও নানা তথ্য উঠে আসতে থাকে। সুশান্তের তৎকালীন প্রেমিকা রিয়ার বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগ করা হয়। সুশান্তের পরিবার রিয়াকেই দায়ী করেছেন অভিনেতার মৃত্যুর জন্য। এর পর রিয়াকে জেরা শুরু হতেই রিয়া জানান সুশান্ত মাদক নিতেন। কিন্তু তাঁর কোনও যোগ নেই মাদকচক্রের সঙ্গে।

তবে আজ এনসিবির জেরার মুখে পড়ে রিয়া জানান তিনিও ড্রাগ নিতেন। মাদক সেবন করতেন নিয়মিত। সূত্রের এই খবর সামনে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়ায়। গ্রেফতার করা হয় রিয়াকে। রিয়ার গ্রেফতারের পর সুশান্তের দিদি শ্বেতা ট্যুইটারে লেখেন, এবার সব সত্যি সামনে আসবে।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.