লাল অন্তর্বাসে ভাইরাল অপরাজিতা আঢ্য

অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ‍্য (Aparajita Adhya) মানেই একরাশ হাসি, অভিনয়ের স্বকীয়তা। কিন্তু অপরাজিতা ক্রমশ পালটে যাচ্ছেন নতুন বছরে।

ওজন কমানোর জন্য কয়েক মাস ধরে নিয়মিত শরীরচর্চা করছেন অপরাজিতা। ট্রেডমিলে হাঁটা তাঁর কাছে এখন রুটিন। কিছুদিন আগে ট্রেডমিলে হাঁটতে হাঁটতেই ওয়ার্কআউটের একঘেয়েমি কাটাতে জনপ্রিয় হিন্দি গান ‘সাকি সাকি’-এর সঙ্গে নেচেছেন অপরাজিতা।

তাঁর সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরালও হয়েছে। এবার লাল রঙের মনোকিনিতে সুইমিং পুলের নীল জলে ক্যামেরাবন্দি হলেন তিনি।

অনেক মহিলাই মোটা হওয়ার কারণে সুইমিং কস্টিউম পরতে চান না। অপরাজিতা বডি শেমিং -কে তুড়ি মেরে উড়িয়ে লাল রঙের মনোকিনি পরে উদাহরণ তৈরী করলেন। অপরাজিতার এই ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নেটিজেনদের কাছে প্রশংসনীয় হয়েছে ।

কিছুদিন আগেই উত্তরবঙ্গে ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন অপরাজিতা । পাহাড়ের হিমেল হাওয়া অপরাজিতার পজিটিভ এনার্জি আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।

দূষণমুক্ত পরিবেশে বহমান নধীর ধারে অপরাজিতা খালি গলায় গেয়ে উঠেছিলেন বলিউড ফিল্ম ‘খামোশি-দ‍্য মিউজিক্যাল’-এর জনপ্রিয় গান ‘আজ ম্যায় উপর’।

তার সঙ্গে হালকা নাচও নেচেছিলেন। অনস্ক্রিন অপরাজিতাকে শাড়ি পরে দেখা যায়। কিন্তু পাহাড়ে বেড়াতে গিয়ে কালো রঙের হাকোবা ড্রেস, লাল জিপসি টুপি ও কালো স্টকিংস পরেছিলেন অপরাজিতা। এই রূপেও তাঁকে যথেষ্ট আকর্ষণীয় লাগছিল।

অপরাজিতা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছিলেন তাঁর গানের ভিডিওটি। বাঙালির প্রিয় নায়িকা অপরাজিতা ভিডিওটি শেয়ার করতেই মুহূর্তে তা ভাইরাল হয়ে গেছে।

কিছুদিন আগেই রিলিজ হয়েছে মৈনাক ভৌমিক (Mainak bhoumik)পরিচালিত ফিল্ম ‘চিনি’ । এই ফিল্মে অভিনেত্রী মধুমিতা সরকার( madhumita sarkar)-এর মা মিষ্টি-র ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অপরাজিতা।

প্রকৃতপক্ষে মা ও মেয়ের সম্পর্কের রসায়ন নিয়ে তৈরী ‘চিনি’। ‘চিনি’ হয়তো অনেকাংশে এক মহিলার গল্প যিনি একসময় বাঙালি পরিবারের আটপৌরে গৃহবধূ হলেও পরবর্তীতে সম্পূর্ণ পরিবর্তিত হয়ে যান।

অ্যালকোহলের প্রতি আসক্তি, নিজের মতো করে জীবন বাঁচা মহিলাকে আলাদা দিশা এনে দিলেও তাঁর মেয়ের মনে তা নেতিবাচক প্রভাব তৈরী করে। ফিল্মটা আসলে মধুমিতার নয়, অপরাজিতার। অপরাজিতার অভিনয় সবাইকে ফিকে করে দিয়েছে এক লহমায়।

অপরাজিতার মতো অভিনেত্রীও একসময় ইন্ডাস্ট্রির তথাকথিত রাজনীতির শিকার হয়েছিলেন। বহু নায়ক নিজেদের প্রেমিকাকে ফিল্মে নায়িকা হিসেবে নেওয়ার সুপারিশ করেছেন প্রযোজকদের কাছে এবং বাদ দিয়ে দেওয়া হয়েছে অপরাজিতাকে।

বারবার রিজেকশন অপরাজিতাকে আরো শক্তিশালী করে তুলেছে। তিনি আবারও ফিরে এসেছেন নতুন রূপে, নতুন সাজে, আপামর বাঙালির ‘পারি’ হয়ে। নিজেই ঘুরিয়ে দিয়েছেন নিজের কেরিয়ারের মোড়।

ফিরে তো তাঁকে আসতে হতোই তাঁর অভিনয়ের আঙিনায়, কড়ায়-গণ্ডায় উশুল করে নিতে হতো তাঁর খ্যাতি কারণ তিনি যে হার মানতে জানেন না, তিনি যে ‘অপরাজিতা’।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.